যদি পরিবারে দেখা দেয় এই ৪টি অশুভ সংকেত, তবে বুঝবেন মা লক্ষ্মী আপনার গৃহ শিঘ্রই ত্যাগ করবেন…

0
6820

জীবন সুখ ও দুঃখের এক মিলিত সম্ভার। এখানে যেমন সুখ আছে তেমন দুঃখও আছে। এর মধ্যে যদি কিছু একটা বাদ পড়ে যায় তাহলে আপনার মনে হবে জীবন যেন একঘেয়ে হয়ে গেছে। একঘেয়ে জীবন আমরা কেউই পছন্দ করিনা। আমরা সকলেই জীবনে পরবর্তন ভালোবাসি। তাই অনেকে আবহাওয়া পরিবর্তনের জন্য ঘুরতে বেড়াতে যায়।

সুখ এবং দুঃখ কখনও একসঙ্গে থাকে না। একটি গেলে আর একটি আসে। আমরা যখন দুঃখে থাকি তখন আশা করে থাকি সুখের। কিন্তু সুখের সময় দুঃখের আশা কেউ কখনও করেনা। কারণ সব মানুষ চায় ভালো থাকতে।

দুঃখের সময় হাল ছেড়ে দেওয়া একদম উচিৎ নয়। আমরা যদি দুঃখের সময় ভেবে ফেলি যে দুঃখের দিন আর কখনও শেষ হবেনা, দুঃখের মধ্যেই জীবন শেষ হয়ে যাবে, তাহলে জীবনের কাছে হেরে যেতে হয়। বর্তমানে সুখে থাকার একমাত্র চাবিকাঠি হল অর্থ। অর্থের জন্যই মানুষ দিন রাত পরিশ্রম করে।

আর তার জন্য দেবী লক্ষ্মীকে প্রসন্ন করা খুব দরকার। যদি মা লক্ষ্মী অসন্তুষ্ট হন তাহলে আপনার সংসারে নেমে আসবে ঘোর খারাপ সময়। তাহলে আসুন জেনে নিন কি কি করলে মা লক্ষ্মী অসন্তুষ্ট হন। আর সেই বুঝে সাবধান হয়ে যান।

১। অন্নের অপমান ঃ- বাড়িতে বড়দের সব সময় বলতে শোনা যায় যে ভাত নষ্ট করতে নেই। এই কথা শস্ত্রেও লেখা আছে। অন্ন হল মা লক্ষ্মী। অন্নের অপমান মানে মা লক্ষ্মীর অপমান করা। আর তার অপমান হলে তিনি আপনার গৃহ ছেড়ে চলে যাবেন। তাই কখনও অন্ন নষ্ট করতে নেই।

২। বৃদ্ধ মানুষের অপমান ঃ- যে বাড়িতে বৃদ্ধ লোকেদের অপমান করা হয় সেই বাড়িতে মা লক্ষ্মী থাকেন না। সেই বাড়ি ছেড়ে তিনি চলে যান। মা লক্ষ্মীকে প্রসন্ন রাখতে চাইলে আপনার বাড়ির বয়স্ক মানুষদের সম্মান দিন। যদি বৃদ্ধদের কখনও ভুল করে অপমান করে থাকেন তাহলে এখনই সেই ভুল শুধরে নিন।

৩। পরিবারে ঝামেলা করা ঃ- যদি আপনার পরিবারে প্রায় রোজই ঝামেলা হয়ে থাকে, সেটি খুব খারাপ লক্ষন। তাহলে খারাপ কিছু হতে চলেছে। মা লক্ষ্মী খুব শীঘ্রই বিদায় নিতে চলেছে আপনার গৃহ থেকে। ৪। মিথ্যে কথা ঃ- যদি আপনি মিথ্যাবাদী হন আর যদি আপনার মিথ্যার কারণে অন্য ব্যাক্তি দুঃখ পায় তাহলে তা আপনার জন্য মোটেই ভালো না। মা লক্ষ্মী এতে অসন্তস্ট হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here