পুরুষদের চেয়ে মহিলারা বেশি খুশি হন পরকীয়ায়, বলছে সমীক্ষা…

0
3697

নারী মাত্রই গোপনীয়তা এবং তার সাথে অনেক না জানা রহস্য লুকিয়ে থাকে। এই কথা আপনার সঙ্গিনীকে অনুশীলন করে আপনি হয়তো এতো দিনে বুঝে গেছেন। এই রহস্যের কোন কুল কিনারা করা খুব মুশকিল। রহস্য গুলি যেকোন ক্ষেত্রের হতে পারে। আজ যে বিষয়টা নিয়ে কথা বলবো সেটা হল নারীদের পরকিয়া। হ্যাঁ ঠিকই শুনছেন বন্ধু, পরকিয়া তাও আবার নারীদের।

কথায় আছে ‘নারীর মন বেজায় জটিল’। আর সেই জটিল মনে যদি কোন আকাঙ্খা থাকে তবে তার সন্ধান পাওয়া দুরহ ব্যাপার। তাও আবার সেটা যখন আবার পরিকিয়া তখন। তার মনে যে ব্যাক্তিটি রয়েছে তার খোঁজ পাওয়া আরও কঠিন।

কিন্তু এই পরকিয়া করার পেছনে কারনটা কি ? নিজের সঙ্গির সাথে সুখি না হওয়া, না কি কেবলই শারীরিক আকাঙ্খা, নাকি অবসর সময় যাপন ? পরকিয়াই যদি করতে হয় তবে শুধু শুধু সম্পর্কে জড়ানোর মানেটা কি!

আসলে এই উল্লেখগুলির প্রতিটাই জড়িয়ে আছে পরকিয়ার সাথে, একটিকে ছাড়া অন্যটি অসম্পূর্ণ। এবং এই ক্ষেত্রে সব থেকে বেশি খুশি হন মেয়েরা, তাই বলছে সমীক্ষা।

পরকীয়ায় পুরুষদেরকে পেছনে ফেলে সবার আগে রয়েছে নারীরা। একটি সমীক্ষা থেকে এই সিদ্ধান্তেই পৌঁছেছেন গবেষকরা। কানাডার একটি অনলাইন ডেটিং এন্ড সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট হল ‘অ্যাশলে ম্যাডিসন’ এবং এই সাইটের মাধ্যমে একটি সমীক্ষা চালানো হয় পুরুষ এবং মহিলাদের ওপর। এই সাইটের থেকে উঠে আসা তথ্য থেকে জানা যায় যে পুরুষদের তুলনায় মহিলারাই বেশি খুশি পরকিয়ায়।

মিসোউরি স্টেট ইউনিভার্সিটির অধ্যাপিকা অ্যালিসিয়া ওআকার প্রায় ১০০০ জনকে নিয়ে এই সমীক্ষা চালান এবং তাতে এই সিদ্ধান্তই প্রকট হয়। তিনি আরও বলেন এই মহিলাদের চরিত্র এবং চারিত্রিক গঠন সম্পর্কে। তিনি বলেন যে এই মহিলারা যে সমস্ত পুরুষদের সাথে মেশে তাদের সাথে কোন সিরিয়াস সম্পর্ক করে না, বরং শরীরী চাহিদাটাই বেশি গুরুত্ব পায়।

এরা সপ্তাহে দুইবার করে এদিকে পা বাড়ান এবং যে মহিলারা একবার বিবাহিত জীবনের সুখ পেয়েছেন তারাই বেশি আকৃষ্ট হন এই দিকে। এক সঙ্গি ছেড়ে আরেক জন, নিজের চাহিদার ফাঁকা জায়গাটা পুরন করতেই বেছে নেন অন্য সঙ্গি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here