ভিক্ষে করে জমেছিল সাড়ে ৬ লাখ, নিহত জওয়ানদের পরিবার কে দান করলেন এই ভিখারিনী।

0
490

সম্প্রতি পুলওয়ামার হামলার পর তাদের উপর বদলা নিতে তত্পর হয়েছিল ভারত। মোট তিন শো জঙ্গিকে মেরে পাকিস্তানের করা হামলার বদলা নিয়েছে। জানা গেছে একজন জঙ্গি নিজের পরিচয় লুকিয়ে ছিলেন ভারতেই। ভারতীয় সেনারা তারপর তাঁকে খুজে বের করে এনকাউনটার করে মরে। এখনও সেখানে চলছে গুলির লড়াই।

ইতিমধ্যে জানা গেছে হামলায় মৃতদের পরিবার কে সরকরের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে অর্থিক সাহায্য। কিন্তু টাকা দিয়ে কি আর তাদের পরিবারের সদস্যের অভাব পুরণ করা সম্ভব? না, কখনই সম্ভব নয়। সেই সেনাদের মধ্যে তারা কারোর স্বামী, কারোর ছেলে, কারোর বাবা, কারোর দাদ।

টাকা দিয়ে এদের অভাব পুরণ করা কখনই সম্ভব নয়। তাদের কাছে শুধু ভারত থেকে নয় সারা বিশ্ব থেকে সাহায্য আসছে। সরকার ছাড়াও আরো অনেক মানুষ এসে পাশে দাড়িয়েছে তাদের। এদের মধ্যে অন্যতম হল এক ভিখারি। আশ্চর্য এই কাজ করে অবাক করলেন সকলকে। তিনি ভিখারিনি। তার কাজ সারাদিন ভিক্ষা করা। আর সে ভিক্ষা করেই নিজের ব্যঙ্ক ব্যালেন্স করেছিলেন ছয় লক্ষ টাকা।

আর নিজের সব সম্বল দান করে দিলেন জওয়ানদের পরিবারের হতে। তার নাম হল নন্দিনী শর্মা। তিনি সারাদিন ধরে ভিক্ষা করতেন। আর সেই ভাবেই তার কাছে জমেছিল এত টাকা। তার আর কেউ নেই। তার সন্তানেরা তাঁকে দেখেনা।

তাই সে বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে রাস্তায় রাস্তায় ভিক্ষা করে। তার কথায় দেশের সেনা রা হলেন তার সন্তান। তিনি যে রাস্তায় বাস করে দিন কাটান আর তিনি যে নিরাপদে আছেন, তার জন্য তিনি সেনাদের কাছে খুব উপকৃত। তাই নিজের সব টাকা দিয়ে দিলেন তাদের পরিবার কে। তার বাড়ি ছিল রাজস্থানের অজ্মেরে।

বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর আজ্মেরের অম্বে মাতার মন্দিরের বাইরে ভিক্ষা করতেন। তার রোজকার ছোট হলেও তার মন যে কত বড় টা প্রমান করেছেন তিনি এই মহান কাজ করে। এই খবর জানাজানি হোয়ার পর রাজস্থানের লোক তাঁকে দেখার জন্য সেখানে যান। এবং ভগবানের কাছে তার জন্য শুভ কমনা করেন। এই দেশে যেন নন্দিনী শর্মার মত মানুষ অনেক থাকে। তার এই মহান কাজ কেউ কনদিন ভুলবেনা। সবাই তাকে মনে রাখবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here