জেনে নিন এই ‘স্বর্গীয় ফল’ কাঁকরোল খাওয়ার ১০টি অসাধারন উপকারিতা…

0
844

কাঁকরোল হল এক ধরনের সবজি। এটি এখনকার বাচ্ছারা হয়তো অনেকেই চেনেনা। এই কাঁকরোল দেখতে অনেকটা কাঁঠালের মতো। পার্থক্য শুধু আকারে। কাঁঠাল আকারে বড় আর কাঁকরোল ছোট। এই সবজি তরকারি বানিয়ে বা ভাজা করেও খাওয়া যায়। পুষ্টি গুণে ভরপুর এই সবজি। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক কি কি উপকার পাওয়া যায় কাঁকরোল থেকে…

১। ক্যান্সার প্রতিরোধ ঃ- কিছুদিন আগে একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে কাঁকরোল ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে। এতে থাকা প্রোটিন ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি পেতে বাধার সৃষ্টি করে। তাই এর নাম দেওয়া হয়েছে স্বর্গীয় ফল।

২। অ্যানিমিয়া প্রতিরোধ ঃ- কাঁকরোলে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ভিটামিন সি ও ফলিক অ্যাসিড থাকায় অ্যানিমিয়া প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়। যেহেতু মেয়েদের অ্যানিমিয়া হওয়ার সম্ভাবনা বেশি তাই মেয়েদের কাঁকরোল খাওয়া অবশ্যই উচিৎ।

৩। কোলেস্টেরল কমায় ঃ- কাঁকরোল শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। যেকোন কোলেস্টেরলের রোগী কাঁকরোল খেতে পারেন। এতে সহজেই কিছুদিনে আপনার কোলেস্টেরল কমতে পারে।

৪। মেদ কমায় ঃ- যারা রীতিমত স্বাস্থ্য সচেতন, শরীরে একটুও মেদ জমতে দিতে চান না, তারা কাঁকরোল খান নিয়মিত। এতে থাকা ভিটামিন সি আপনার শরীরে ফ্যাট জমতে দেয় না। ফ্যাট বার্নার হিসাবে কাজ করে কাঁকরোল।

৫। কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ প্রতিরোধ ঃ- কাঁকরোলে থাকা প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট কার্ডিওভাস্কুলার রোগ প্রতি রোধে সক্ষম। হৃদরোগের জন্য কাঁকরোল খুব উপকারী।

৬। দৃষ্টিশক্তি বাড়ায় ঃ- কাঁকরোলে আছে ভিটামিন ও বিটাক্যারোটিন। এই উপাদান দৃষ্টিশক্তির উন্নতি করে, ছানি পড়তে দেয়না।

৭। বিষন্নতা প্রতিরোধ ঃ- কাঁকরোল সেলেনিয়াম, মিনারেল ও ভিটামিনে ভরপুর। কাঁকরোল খেলে নার্ভাস সিস্টেম ভালো থাকে। বিষন্নতা দূর হয়।

৮। তারুন্য ধরে রাখে ঃ- কাঁকরোল খেলে ত্বকে বয়সের ছাপ কম পড়ে। এটি কোলাজেনের পুনর্নির্মানের কাজে সাহায্য করে। আর স্ট্রেস কম হওয়ার কারণে বয়সের ছাপ কম পড়ে।

৯। হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমায় ঃ- শরীরে লাইকোপিনের মাত্রা কম থাকলে তাদের হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা বেশি থাকে। কাঁকরোল শরীরে লাইকোপিনের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে তাই হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমে যায়।

১০। ত্বকের যত্ন ঃ- কাঁকরোলে আছে বিটা ক্যারোটিন ই ভিটামিন ই। এটা খাওয়া ত্বকের জন্য খুব উপকারী। কাঁকরোলের সবজি বা ভাজা খেতে না পারলে কাঁকরোলের জুস খাওয়া যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here