বাড়িতে সব সময় অশান্তি বা সমস্যা লেগেই রয়েছে, মুক্তি পান সহজ এই উপায়ে…

0
5320

সবাই চায় একটু সুখে শান্তিতে থাকতে। আর্থিক ভাবে সবাই চায় একটু যেন ভালো থাকে। বাড়িতে কোনো রকম অশান্তি ঝগড়া কেউই পছন্দ করে না। বাড়িতে সুখ শান্তি বজায় রাখার জন্য অনেকেই অনেক কিছু করে থাকে। বাস্তুশাস্ত্র মেনে অনেকে অনেক কিছু মেনে চলে। বাড়িতে যাতে কোনো রকম নেগেটিভ এনার্জি না প্রবেশ করতে পারে সেজন্য অনেক নিয়ম অনেকে মেনে চলে।

বাস্তু মতে অনেকে সন্ধ্যার পর ঘর পরিষ্কার করে না, কারন এতে বাড়ি থেকে পজিটিভ এনার্জি বেরিয়ে যায়। অনেকেই ঘরে কোনো রকম অপ্রয়োজনীয় জিনিস রাখে না, এতে বাড়িতে নেগেটিভ এনার্জি বিরাজ করে। বাস্তু মতে বৃহস্পতিবার তুলসী তলায় প্রদীপ দেখানো উচিত, তাতে লক্ষী দেবী প্রসন্ন হয়ে ঘরে শান্তি বিরাজ করেন।

এমনকি প্রত্যেক বৃহস্পতিবার লক্ষী দেবীর পাচালি পরে তাকে আরাধনা করা উচিত, এর ফলে তিনি প্রসন্ন হন, ঘরে শান্তি বিরাজ করে। বাস্তু মতে বুধবারকে গনপতিদেবের বার বলে মনে করা হয়, এই বারে গনপতিদেবের আরাধনা করলে তিনি প্রসন্ন হন ও পরিবারের আর্থিক বিপর্যয় কেটে যায়।

বাস্তু মতে বাড়িতে লাফিং বুদ্ধের মূর্তি রাখলে সুখ স্বাছন্দ্য বজায় থাকে ও আর্থিক ভাবে পরিবারের উন্নতি হয়। বাস্তু মতে বাড়ির প্রবেশ দ্বারে পঞ্চমুখ হনুমানজীর ছবি বা মূর্তি থাকলে বাড়িতে সুখ শান্তি বজায় থাকে।

অনেক সময় দেখা যায় নিত্যদিন বাড়িতে ঝগড়া অশান্তি লেগেই থাকে, সেটা শরীর খারাপ বিষয়ক হোক বা পারিবারিক হোক। এই অশান্তি থেকে মুক্তি পেতে বাস্তুর কিছু উপায় মেনে চললেই হয়। বাড়িতে নিয়মিত ঝগড়া অশান্তি লেগে থাকলে বাড়ির মুল দরজায় সাদা গণেশের মূর্তি রাখুন। এতে ঘরের নেগেটিভ এনার্জি দূর হয়।

বাড়িতে কোনো অশুভ শক্তির ছায়া থাকলে পুজো দেওয়ার আগে গরুর দুধ ও গঙ্গাজল মিশিয়ে ছিটা দিন, এতে বাস্তুর উন্নতি হয়। মাটির প্রদীপ তৈরি করে তাতে তেল দিয়ে প্রতিদিন সন্ধ্যাবেলা বাড়ির মুল দরজায় জ্বালান, এতে সংসারে উন্নতি আসবে।

সকালে পুজোর সময় ইষ্টদেবতাকে স্মরণ করে সব সমস্যার কথা জানিয়ে একটা বা দুটো নারকেল ছোবা কালো সুতো দিয়ে পেচিয়ে রেখে দিন, সন্ধ্যাবেলা তা পুড়িয়ে দিন। টানা ৯ দিন এরকম করলে উপকার পাবেন। বাড়িতে তুলসী গাছ লাগান, গাছের যত্ন নিন, সকাল সন্ধ্যা পুজো করুন, নিয়মিত প্রদীপ জ্বালান উপকার পাবেন।