অবলা প্রানীদের গায়ে রং দিলে হতে পারে ৬ মাসের জেল।

0
1172

এসে গেল বাঙালীদের আর এক মজার উতসব দোল। এই উতসবে সকলে রং মেখে মজা তো করে, আবার অনেকে  মজা পেতে প্রতি বছর দোলের সময় পথের কুকুর, বিড়াল, গরু, ছাগলদের গায়ে রং মাখায় এক শ্রেনির মানুষ। এই কাজ আটকাতে প্রচার চলে অনেক। তা সত্ত্বেও সচেতন হয়না কোন মানুষ। কিছু মানুষের তবুও মানবিকতা ফেরেনা। তাই এবার তাদের জন্য ব্যবস্থা নিতে চলেছে বিধাননগর পুলিশ কমিশনার। কুকুর, বিড়াল বা অন্য কোন রাস্তার অবলা প্রানীর গায়ে কেউ রং দিলে নেওয়া হবে আইনি ব্যবস্থা। তাদের ৬ মাস জেল পর্যন্ত হতে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশের কর্তারা।

কুকুরদের জন্য রং ভীষণ ক্ষতিকারক বলে জানিয়েছে পশু চিকিতসকরা। বিশেষজ্ঞরা বলেন কুকুরদের চামড়া মানুষের থেকে অনেক বেশি পাতলা হয়ে থাকে। ফলে কুকুরের গায়ে দেওয়া রং-এ থাকা রাসায়নিক খুব সহজেই কোষের মধ্যে ঢুকে যায়। রঙের রাসায়নিক থেকে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। তারপর আক্রান্ত কুকুর থেকে সুস্থ কুকুরদের মধ্যেও এই রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে।

বিষাক্ত সেই রাসায়নিক তাদের চোখে গেলে তারা অন্ধও হয়ে যেতে পারে। এই নিয়ে বহু সচেতনতা প্রচার চলেছে কিন্তু তাও বন্ধ হয়নি অবলা প্রানীদের প্রতি এই অত্যাচার। বিধাননগর পুলিশ কমিশনার সূত্রে খবর এবার দোলে অবলা প্রানীদের গায়ে রং দিলে ‘প্রিভেনশন অফ ক্রুয়ালটি টু অ্যানিম্যালস’ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কিন্তু অভিযুক্ত যদি প্রথমবার এই অপরাধ করে তাহলে শুধু জরিমানা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হবে। আর তা না হলে ৬ মাস পর্যন্ত জেল হাজত হতে পারে।

যারা অবলা প্রানীদের গায়ে এভাবে রং দেয় তারা নিজেরা রং মেখে ভালো ভাবে স্নান করে নেয়। কিন্তু তারা কি কুকুরদের স্নান করিয়ে দেয়? না। কুকুরেরা নিজেদের পরিষ্কার করার জন্য জিভের সাহায্য নেয়। আর এই ফলে ক্ষতিকর রাসায়নিক তাদের পেটে যায়। তার ফলে কুকুরের অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়। তাদের লোমও উঠে যায়। শুধু তাই নয় মৃত্যুও হতে পারে। তাই এই কথা গুলো মাথায় রাখা উচিত সকলের।

এই বার্তা নিয়ে রবিবার পথেও নেমেছিলেন মেডিক্যাল ব্যাঙ্ক নামে এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। এই মিছিলে যোগদান করেন কিছু স্কুল পড়ুয়া। যে কথা শিশুরা বুঝতে পারছে, সেই কথা কিছু পরিনত বয়সের মানুষ বুঝতে পারছেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here