ঠাকুরঘরে ভুলেও এই দেবতার মূর্তি রাখবেন না, জ্বলে পুড়ে শেষ হয়ে যাবে সংসার…

0
34598

বাড়িতে ভগবানের ছবি বা মূর্তি রেখে আরাধনা করেন অনেকেই। আরাধ্য দেবতার ছবি বা মূর্তি রেখে উপাসনা করলে সব বাধা বিঘ্ন এড়ানো যায়। তবে হিন্দু শাস্ত্র মতে এমনও অনেক দেবতার মূর্তি আছে যা বাড়িতে রাখতে নেই। এই দেবতার ছবি বা মূর্তি বাড়িতে রাখলে তা আপনার জীবন অশান্তিতে ভরিয়ে তুলতে পারে। কোন সেই দেবতা ? জেনে নিন –

বাড়িতে ভুল করেও শ্মশান কালির ছবি বা মূর্তি রাখবেন না। তান্ত্রিকগণ এই দেবীর পুজো করে থাকেন। বাড়িতে এই দেবীর ছবি বা মূর্তি রাখলে গৃহস্থের অমঙ্গল হয়। দেবী শ্মশান কালি খুবই জাগ্রত, তাই দেবীকে রুষ্ট করা কখনোই উচিৎ নয়।

কোনো দেবতার বিধ্বংসী বা রুদ্র রুপের ছবি বাড়িতে না রাখাই ভালো। এই ধরনের ছবি বা মূর্তির পুজো করলে তা অমঙ্গল ডেকে আনে। এর ফলে আপনার জীবনে অশান্তি নেমে আসতে পারে। মন্দিরে এই ধরনের ছবি বা মূর্তির পুজো করা যায়, তবে নিজের ঘরে রাখবেন না।

হিন্দু শাস্ত্রের ওপর লেখা একাধিক বইয়ে এমনটা উল্লেখ পাওয়া যায় যে বাড়িতে ভুল করেও একসাথে তিনটি গণেশের মূর্তি রাখবেন না। এমনটা করলে দুর্ভাগ্য নেমে আসতে পারে আপনার জীবনে। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্বৃদ্ধির পদও আঁটকে যায়। ফলে টাকা পয়সা সম্পর্কিত নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে।

শাস্ত্র মতে বাড়িতে একসাথে দুইটি শিবলিঙ্গ রাখা একেবারেই অনুচিত। এমনটা করলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। কারণ একসাথে দুইটি শিবলিঙ্গ রাখলে শিবলিঙ্গের মহিমা কর্তিত হয়। তাই বাড়িতে ভুল করেও দুইটি শিবলিঙ্গ একসাথে রাখবেন না।

বাড়িতে ভুল করেও দেবী ধূমাবতীর ছবি বা মূর্তি রাখবেন না। ধূমাবতী দশ মহাবিদ্যার অন্যতম এক তান্ত্রিক দেবী। তন্ত্র গ্রন্থে তাকে বৃদ্ধা ও কুৎসিত বিধবা রুপে বর্ণনা করা হয়েছে। তিনি পুরাতন বস্ত্র পরিধান করে থাকেন। তিনি সর্বদা ক্ষুধার্ত ও তৃষ্ণার্ত অবস্থায় থাকেন। তিনি কলহের কারণ ও ভয় প্রদানকারিণী দেবী। তাই বাড়িতে ভুল করেও তার ছবি বা মূর্তি রাখবেন না।

কোনো দেবতার ছবি বা মূর্তি যদি ভেঙে যায় তাহলে তা সঙ্গে সঙ্গে ঘর থেকে সরিয়ে ফেলুন। বাস্তু মতে ভাঙা দেবতার মূর্তি ঘরে রাখলে তা অশুভ ফল প্রদান করে। এর ফলে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন আপনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here