অতিরিক্ত ধূমপানে বদলে যাবে মুখ, বলছেন গবেষকেরা…

0
3158

নেশা জিনিসটা যে কতটা বাজে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। নেশা মানুষকে কতটা নিচে নামাতে পারে তার বহু উদাহরণ রয়েছে আমাদের চারপাশে। নেশার ঘোরে মানুষ খু’ন করতে পর্যন্ত পিছপা হয় না। নেশা করতে গিয়ে মানুষ এতটাই মগ্ন হয়ে যায় যে নিজের শরীরের কথা, নিজের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রাখতে ভুলে যায়। নেশা অনেক মানুষের জীবন নিয়েও নিয়েছে।

বিভিন্ন নেশার মধ্যে ধূমপান একটি, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক। প্রতিটা সিগারেটের প্যকেটে লেখা থাকে “Tobacco Causes Cancer”, তাও আমাদের হুঁশ ফেরে না। আমারা কোনো কিছু তোয়াক্কা না করে দিব্যি ধূমপান করে যাই। ধূমপানের ফলে মানব দেহে হেড ন্যাক ক্যান্সার হয়।

নাক, মুখ, খাদ্যনালী, শ্বাসনালী, থাইরয়েড গ্রন্থি, লালাগ্রন্থি ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে তাকে হেড ন্যাক ক্যান্সার বলে। এই ক্যান্সার খুব সহজেই ধরা পরে। সাইনাসে ক্যান্সার হয়, থাইরয়েডে ক্যান্সার হয়। মানব দেহে ৩০ শতাংশ হেড ন্যাক ক্যান্সার হয়, তার অন্যতম কারন হল ধূমপান।

ফুসফুসের ক্যান্সার হল ধুমপানের আরেকটি কারন। সিগারেটের ধোয়া সরাসরি ফুসফুসে এসে আঘাত করে। এর ফলে ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুকি বেড়ে যায়। এছাড়া গবেষণা আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এনেছে। গবেষকরা জানাচ্ছেন যে অতিরিক্ত ধূমপানে মানুষের মুখের চেহারা বদলে যায়।

শরীরের নানা রোগের সুত্রপাত লুকিয়ে থাকে সিগারেটের ধোয়ায়, তার থেকে বিভিন্ন মারন রোগের সম্ভবনা দেখা যায়। সম্প্রতি ব্রিটেনের ব্রিসল বিশ্ববিদ্যালয় হওয়া গবেষণা থেকে জানা গেছে অতিরিক্ত ধূমপান মুখের চেহারা বদলে দিচ্ছে, নিজের বয়সের থেকে অনেক বেশি বয়স্ক মনে হচ্ছে।

এটা দীর্ঘ সময় গবেষণা চালানোর পর তারা বলেন সিগারেট যেমন শরীরের ভেতরের অংশকে খারাপ করছে, সেরম ভাবেই অতিরিক্ত ধুমপানের ফলে মানুষের মুখের চেহারা বদলে যাচ্ছে। এই গবেষণা চালানোর জন্য গবেষকরা দুটি দল ভাগ করে নেন।

একদলে যারা কোনোদিন ধূমপান করেননি, আর আরেকটি দল দুভাগে ভাগ হয় যেখানে একদল সদ্য ধূমপান করছেন আর একদল বহুদিন ধরে ধূমপান চালিয়ে আসছেন। মজার ব্যাপার হল গবেষকরা দেখেছেন যারা অনেকদিন ধরে ধূমপান করছেন তাদের বয়সের ছাপ পড়েছে অনেক আগে। এই কারন ধূমপানে মানুষের মুখের চেহারা দ্রুত বদল।