নোট বাতিলের পর এবার সোনা নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত সরকারের ?…

0
6738

দেশের লোক কালো টাকা নিয়ে বহুদিন ধরে চিন্তিত ছিল। সেই চিন্তা থেকে লোককে মুক্ত করতে সরকার উদ্যোগ নিয়েছিল নোটবন্দীর। কেউ যাতে কোনভাবে দেশে কালো টাকাকে ব্যবহার করতে না পারে সেইজন্যই সরকারের এই ব্যবস্থা ছিল। কিন্তু সম্পূর্ণভাবে কালোটাকা রোখা যাচ্ছে না কোনভাবেই। নোট বাতিল দেশের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় বলা চলে।

কালো টাকা সম্পূর্ণ নষ্ট কিভাবে করা যাবে সেই নিয়ে অবশ্য কাজ সবসময়েই চলছে এবং চেষ্টা করা হচ্ছে যাতে সবদিক থেকে সেই টাকার পথ বন্ধ করে দেওয়া যায়। এখনো পুরোপুরি সফল না হলেও অদুর ভবিষ্যতে যে আমরা ভয়ানকভাবে সফল হবো সেই নিয়ে কোন সন্দেহই নেই।

শুধু নোট বাতিল করে সব সমস্যার সমাধান হতে পারেনা জেনেই সরকার এবার নতুন স্কিম নিয়ে এসেছে। এই স্কিমের ফলে তারা সব কিছু বন্ধ করতে সক্ষম হবেন বলেই মানুষের ধারণা। এবার তারা পড়েছেন সোনা নিয়ে। সি.এন.বি.সি-আওয়াজের সূত্রের খবর অনুযায়ী কালো টাকা দিয়ে সোনা কেনায় এবার থাকবে লাগাম।

যে কেউ কালো টাকা দিয়ে গুচ্ছের সোনা যাতে কিনে নিতে না পারেন সেই জন্যই এই ব্যাবস্থা। Amnesty Scheme নিয়ে আস্তে চলেছে সরকারের আয়কর বিভাগ। এতে রসিদ ছাড়া অনেক পরিমান সোনা কিনলে এবং নির্দিষ্ট মাত্রার বেশি সোনা কিনলে দিতে হতে পারে কৈফিয়ত।

শুধু তাই নয়, এরকম করলে আইনি ব্যবস্থাও নিতে পারে সরকার। সোনার মুল্য এখন থেকে জানাতে হবে সরকারকে। সোনার মুল্য নির্ধারণ করার জন্য ভ্যালুয়েশন সেন্টারের সার্টিফিকেট লাগবে। সেই সার্টিফিকেট না থাকলে সোনার নির্ধারিত মূল্য পাওয়া যাবে না কোন মতেই।

রসিদ ছাড়া বেশী সোনা থাকলে সেই সোনার জন্য দিতে হবে আলাদা ট্যাক্স। কেউ কারচুপি করতে গেলে তার জন্য অপেক্ষা করে আছে জেল। গোল্ড স্কিমকে জনপ্রিয় করে তোলার জন্যও বেশ কিছু ব্যবস্থা নেওার কথা বলা হয়েছে। অর্থ মন্ত্রালয় এই স্কিমের ড্রাফ্ট তৈরী করছে বলে সুত্রের খবর।

মানে তারা নিজেদের এই স্কিম ক্যাবিনেটে পাঠিয়েছে। খুবই তাড়াতাড়ি এই স্কিম কার্যকরী হবে বলে অনেকেই মনে করছেন। মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানায় নির্বাচনের জন্য সব পিছিয়ে গেলেও খুব তাড়াতাড়ি এই বিষয়ে সম্পূর্ণ খবর জানাতে পারা যাবে।