সুখী হতে বিবাহ সম্পর্কিত এই ইস্যুগুলি বুদ্ধিমান দম্পতিরা সহজেই জয় করে নিতে পারেন…

0
11412

বিবাহিত জীবনে সব দম্পতিদের মধ্যেই আশান্তি ঝামেলা হতে দেখা যায়। অনেকেই বিয়ের পর বহু বছর সুখে সংসার করে, আবার অনেকেই এই জামেলা সহ্য করতে না পেরে বিবাহ বিছেদের রাস্তা নেয়। কিন্তু এমন কতগুলো উপায় রয়েছে যেগুলোর সাহায্যে দম্পতিরা খুব সহজেই যেকোনো সমস্যার মোকাবিলা করতে পারে। আজকে আমরা দাম্পত্য জীবনের কিছু সমস্যা জয় করার কৌশলগুলি আপনাদের সামনে উপস্থাপন করছি।

১. আপনার সঙ্গী অন্য মেয়ের দিকে তাকাতে শুরু করেছেন, এটার মানে আপনার সম্পর্কে চীর ধরেছে বলেই ধরা হয়। এর কোনো একক উত্তর নেই।

২. একটি তরুণ পরিবারে সন্তান নিলে আর্থিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। প্রথম সন্তান নেওয়ার টাকা জমাতে হবে এবং অপ্রয়োজনীয় খরচা কমাতে হবে। যদিও একটি গবেষণায় দেখা গেছে বেশিরভাগ সময়ই অভিভাবকরা সন্তান নেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকে না।

৩. কোনো দিনই বউ-শাশুড়ির সম্পর্ক ভালো হয় না। তাদের মধ্যে কোনো দিনই বনিবনা হয় না। বউ শাশুড়ির মধ্যেকার সম্পর্কে টেনশন আরও জোরালো হয়। বউ-শাশুড়িরা একই ছাদের নিছে বাস করলে তারা হার্টের রোগে ভোগে।

৪. স্বামি-স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলা হওয়ার কারণ টাকা-পয়সা। বিয়ের পর নিজের আলাদা টাকা বলে কিছু থাকে না। একজন যদি আর একজনের থেকে বেশি উপার্জন করে তাহলে বেশি ঝামেলা হয়। তবে এই ব্যাপারটা নিজেদের মধ্যে বসে মিটিয়ে নেওয়াই ভালো।

৫. কয়েক মাস একসাথে থাকার পর আপনার সঙ্গীর কিছু অভ্যাস আপনার বিরক্ত লাগতেই পারে। তাই বলে এই নয় যে আপনাদের মধ্যে সম্পর্ক শেষ হয়ে গেছে। আপনার সঙ্গীকে মেনে নিন। নিজেকে এই বলে সান্ত্বনা দিন যে আপনার সঙ্গীর এই অভ্যাস তাকে অন্যদের থেকে অনন্য করে তুলেছে।

৬. গুরুত্বপূর্ণ দিন গুলোর কথা ভুলে যাবেন না। এই দিন গুলো ভুলে গেলে আপনার সঙ্গী খুবই বিরক্ত হয়। নিজেদের মধ্যে ইগো না রেখে যার মনে যা থাকবে সেটি অপরজনকে মনে করিয়ে দিন। আপনার সঙ্গীকে তার ভুলোমনের জন্য লজ্জিত হতে হবে না।

৭. স্বামী-স্ত্রী একসাথে রোজ থাকার পর সব কিছুতে বিরক্তি লাগতে পারে। তাদের জীবনে ফুলশয্যা, রোম্যান্টিক সন্ধ্যা কমতে থাকে। তারপরও, অধিকাংশ দম্পতিরা তাদের সম্পর্কে এই ধরনের পরিবর্তনের সম্মুখীন হয়ে মোকাবেলা করতে পারে।

৮. নতুন বিয়ের পর নবদম্পতিরা শুধু আত্মীয় পায় না, সঙ্গে কিছু নতুন বন্ধুও পায়। প্রায়ই সঙ্গীর বন্ধুকে নতুন পরিবারে স্বাগত জানানো হয় না। এটা মনে হতে পারে যে বন্ধুরা পারিবারিক জীবনে বেশী স্থান দখল করে এবং তার সঙ্গীকে খারাপ পথে পরিচালিত করতে পারে।

৯. অধিকাংশ নবদম্পতিদের বিয়ের পর ওজন বেড়ে যায়। গবেষণায় দেখা যায় যে নতুন বিয়ে করা দম্পতিদের বিয়ের প্রথম বছরে প্রায় ৩-৫ কেজি ওজন বৃদ্ধি পায়। সাধারণত, অবিবাহিত ব্যক্তিদের তুলনায় বিবাহিত ব্যক্তিদের ওজন ১৩ কেজি বেশী থাকে।

১০. ধারণা রয়েছে যে স্বামী বা স্ত্রীকে তাদের ফাঁকা সময় একসঙ্গে কাটানো উচিৎ। কারণ এটি তাদের সম্পর্ককে আরো দৃঢ় করে। কিছু দম্পতি কয়েক বছর ধরে এই ধরনের জীবনযাপন করার পর বিরক্ত হয়ে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here