রাতে ঘুম আসে না ? ৫ মিনিটে ঘুমিয়ে পড়ার ১০ টি উপায়…

0
13485

মানুষের জীবনে ঘুমের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। রাতে ঘুম না আসার একমাত্র কারন মন চঞ্চল থাকা। মন চঞ্চল থাকার কারন মানসিক চাপ। রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমানোর ইচ্ছা থাকলেও সঠিক সময় ঘুম আসে না। বিছানায় শুয়ে ছটফট করা, ঘড়ির দিকে তাকিয়ে রাত কাটানো, এসব লেগেই থাকে। তাই ৫ মিনিতে ঘুমিয়ে পড়ার ১০টি উপায় আজ আমরা আপনাদের বলবো।

১. পর্যাপ্ত পরিমানে ফলমূল, শাকসবজি খেলে শরীরে পালসের এর গতি বৃদ্ধি পায় যার ফলে ঘুম ভালো হয়। রাতে ঘুমানোর ১ ঘণ্টা আগে খেয়ে ১০-১৫ মিনিট হাঁটুন। এটি খাবার হজমে সাহায্য করে। শরীরের ক্লান্তি আসে আর ঘুম তাড়াতাড়ি আসে।

২. রোজ রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধ খেলে শরীরের ট্রিপটোফেনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। যার ফলে ঘুম ভালো হয়।

৩. প্রতিদিন ঘুমানোর টাইম নির্দিষ্ট রাখার চেষ্টা করুন। রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমালে সকালে রোজ তাড়াতাড়ি ওঠার অভ্যাস হবে।

৪. যদি ঘুম না আসে তাহলে রোজ ঘুমাতে যাওয়ার আগে বই পড়ার অভ্যাস করুন। কিন্তু ভুলেও ফোন ঘাঁটবেন না। ফোনের জোরালো আলো মস্তিষ্কে প্রভাব ফেলে যার ফলে ঘুম আসতে দেরি হয়।

৫. বিছানায় শুয়ে ঘুম না আসলে চোক বন্ধ করে ১ থেকে পর পর সংখ্যা গুনুন বা উল্টো দিক থেকেও করতে পারেন। দেখবেন সহজেই ঘুম চলে আসবে।

৬. বিছানায় শুয়ে ঘুম না আসা নিয়ে চিন্তা করার জন্য ঘুম আসতে দেরি হয়। তাই মস্তিক যাতে ক্লান্ত হয়ে পরে তার জন্য নিশ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত ব্যায়াম করা উচিত।

৭. মেডিটেশন করলে ঘুম তাড়াতাড়ি আসে। ঘুমাতে যাওয়ার আগে কোন নেগেটিভ চিন্তা না করে পসিটিভ চিন্তা করে ঘুমাতে যান।

৮. প্রতিদিন শরীরচর্চা করুন। এর ফলে আপনার শরীরে হরমোনের নিঃসরণ কমবে এবং ঘুমটাও ভালো হবে। সকালে রোজ ৩০ মিনিট করে শরীরচর্চা করলে রাতে ঘুম ভালো হয়।

৯. দুপুরের পর আর তেঁতো খাবার খাবেন না। তেঁতো খাবারের মধ্যে এক ধরনের উত্তেজক পদার্থ থাকে। যেটা শরীরের মধ্যে ৭-৮ ঘণ্টা পর্যন্ত থেকে যায়। আপনার শরীরের ঘুম নষ্ট করতে পারে এই তেঁতো খাবার।

১০. রাতে তাড়াতাড়ি খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। খাবার হজম হতে সময় লাগে ২ ঘণ্টা। রাতে বেশি ভারি খাবার না খেয়ে হালকা সহজ পাচ্য খাবার খান। যার ফলে হজমটা তাড়াতাড়ি হবে আর ঘুমটাও ভালো হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here