‘ম্যাডাম, তোমার পিছনে ৪৬ বছর রয়েছি, মনে হচ্ছে এবার আমিও শ্বাসকষ্টে ভুগছি’, পোস্ট স্বামীর…

0
1306

সুষমা স্বরাজের মৃত্যুর পর তার স্বামী স্বরাজ কৌশলের টুইট ‘ঘরের মানুষ হৃদয় ভাঙছে চুর চুর করে।’ সম্প্রতি মৃত্যু ঘটেছে সুষমা স্বরাজের। তার আসল নাম সুষমা, স্বরাজ তার স্বামীর নাম। তিনি তার স্বামীর নামটা জুড়ে নিয়েছিলেন নিজের নামের সঙ্গে। বিয়ের পর থেকে স্বামীর নামের প্রথম ভাগ তার নামের অংশ করে নেন তিনি। সকলেই জানেন তার নাম সুষমা স্বরাজ।

তাদের প্রেম করেই বিয়ে হয়। তাদের প্রেম ছিল বাঁধ ভাঙ্গা, তাদের বিয়েও হয়েছিলো দেশের একটা খারাপ সময়ে। সেই যে এক বাঁধনে বাঁধা পড়েছিলেন দুজন, মৃত্যুর আগে পর্যন্ত হাত ছাড়েননি কেউ। মৃত্যুর আগেও পালন করেছিলো তারা ৪৪ বছরের বিবাহ বার্ষিকী। এতদিনের একসাথে পথ চলা, হঠাত সব থমকে গেলো।

চলে গেলেন সুষমা তার স্বামী স্বরাজ কৌশলকে ছেড়ে না ফেরার দেশে। এতদিনের সঙ্গ, এতদিনের অভ্যাস সব কিছু যেন বদলে গেল। এত বছরের সঙ্গী আর পাশে নেই, আর কখনো ফিরবে না। এই একাকীত্বে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন স্বরাজ কৌশল।

তাদের বিয়ে হয়েছিলো ১৯৭৫ সালের ১৩ই জুলাই। বিয়েতে মত ছিলনা দুই বাড়ির কারোরই। হরিয়ানার রক্ষশীল আরএসএস পরিবারে বেড়ে উঠেছিলেন সুষমা। স্বরাজ কৌশল ছিলেন খাঁটি সোশিয়ালিস্ট। দিল্লী কলেজে একই সঙ্গে তারা আইন নিয়ে পড়াশোনা করেন। প্রথম দেখাতেই তাদের প্রেম হয়েছিলো।

দুই পরিবারের হাজার বাধা থাকা সত্ত্বেও তারা বিয়ে করেছিলেন। নিজেদের প্রেমকে মান্যতা দিয়েছিলেন। তাদের এক মেয়ে, নাম বাঁশুরি স্বরাজ। তিনিও একজন সফল আইনজীবী। সুষমার আত্মপ্রত্যয় ও তেজস্বীতা তাকে সকলের থেকে আলাদা করেছিলো। মাত্র ৬৭ বছর বয়সে হঠাত নক্ষত্র পতন ঘটলো।

৬৭ বছর বয়সে তিনি চলে গেলেন সকলকে ছেড়ে। তিনি তার ঘরের মানুষের হৃদয় ভেঙে চুরচুর করে দিলেন। খুব ভেঙে পরেছে তার স্বামী স্বরাজ কৌশল। একাকীত্ব কাটিয়ে উঠতে পারবেন কিনা তা জানা নেই। এবারের ভোটে যখন তিনি না লড়ার সিদ্ধান্ত নেন তখন তার স্বামী টুইট করে তাকে অনেক ধন্যবাদ জানান।

মাত্র ৩৪ বছরের শীর্ষ আদালতের কনিষ্ঠতম আইনজীবী হিসাবে নিযুক্ত হয়েছিলেন তিনি। আবার তিনি মিজোরামের রাজ্যপাল হয়েছিলেন ৩৭ বছর বয়সে। ১৯৯০ থেকে ১৯৯৩ পর্যন্ত তিনি মিজরমেই ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here