না সিনেমায় কাজ, না বিজ্ঞাপন, তাহলে কিভাবে খরচ চলে রেখার ? জানলে আপনার চোখে জল চলে আসবে…

0
5128

৬৫ বছর বয়স, এক কালের বেশ জনপ্রিয় অভিনেত্রী রেখা। এই বয়সেও বিভিন্ন পুরুষের ফ্যান্টাসি তিনি। বিভিন্ন জায়গা থেকে এখনও নিজের রূপের প্রশংসা পায় তিনি। এক সময় বলিউড ইন্ডাস্ট্রির রাজরানী মানা হত তাকে। কিন্তু রাস্তাটা কখনই খুব একটা সহজ ছিল না তার জন্য। রেখার যখন জন্ম হয় তখনও তার মা বাবার বিয়ে হয়নি এরাম তথ্যও পাওয়া গেছে।

স্ট্যান্ডার্ড ফেস ভ্যালু না থাকায় প্রথমে সিনেমাতে কেউ সুযোগ দিতে চান নি রেখাকে। শ্যামবর্ণ গায়ের রং হওয়াতেও অনেক অপমান সহ্য করতে হয়েছে তাকে। কিন্তু তাও হার মানেন নি রেখা। ১৯৭৬ সালে নিজেকে পুরোপুরি বদলে ফেলেন তিনি, যা দেখে অবাক হয়ে যায় সকলেই।

সবার মুখ বন্ধ করে দিয়ে বলিউডে রেখা যেভাবে পদার্পন করেছিলেন তা খুব কম লোকই করে উঠতে পেরেছেন। অনেকে তো বিশ্বাসই করতে পারেননি। কিন্তু সেই রেখা এখন কিভাবে নিজের খরচা চালায় ? জানেন কি ? জানলে অবাক হবেন আপনিও।

বছরে ১টি করেও ফিল্ম আসে না রেখার। তার প্রধান খরচা চালানোর উপায় বা সোর্স অফ ইঙ্কাম হল তার মুম্বাই এবং দক্ষিণ ভারতের বাড়ি। এই দুটি বাড়িতে ভাড়া খাটিয়ে নিজের মাসকাভারি রোজকার চালান রেখা। কি বিশ্বাস হচ্ছে না তাই তো ? কিন্তু এটাই বাস্তব।

এক কালের সেরা অভিনেত্রী আজ তার মাসিক ইঙ্কাম চালাচ্ছেন দুটি বাড়ি ভাড়া দিয়ে। বয়স কালে এখন আগের মত সিনেমা আসেনা তার, তবে একেবারেই যে সিনেমা আসেনা এই কথাটি বললেও ভুল হবে। কারন ঠিক যেমন বয়স হয়ে গেলেও বাঘ শিকার করতে ভোলে না, ঠিক তেমনই বয়স হয়ে গেলেও অভিনয়টা ভোলেন নি রেখা।

তাই হয়তো আজও তার ফ্যান ফলোইং তুঙ্গে। সব সফল ব্যাক্তিদের কিছু না কিছু ব্যাক স্টোরি থেকেই থাকে। রেখার গল্পটাও অনেকটা সেইরকম। ছোট থেকে খুবই স্ট্রাগেল করে বড় হতে হয় রেখাকে। এটা ঠিক যে পয়সা করির কোন অভাব ভোগ করতে হয়নি তাকে,

কিন্তু আপনারা হয়ত ছোট থেকেই শুনে এসেছন যে পয়সার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল শান্তি। এই শান্তি জিনিসটার বরাবরই খুব অভাব ছিল রেখার জীবনে। কিন্তু এই সব কিছু অতিক্রম করেও তিনি একজন সফল অভিনেত্রী হতে পেরেছেন এই জন্য আমরা তাকে সম্মান জানাই।