উচ্চমাধ্যমিকে ৪৯৮ নম্বর পেয়ে যুগ্ম প্রথম হয়েছে শোভন মন্ডল ও রাজর্ষি বর্মন…

0
2616

জীবনে এগিয়ে চলার মূল মন্ত্র হল বিফলতাকে কোন ভাবেই গুরুত্ব না দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া। তাই কোন পরীক্ষাই কম গুরুত্বপূর্ণ নয় আমাদের জীবনে, সেরকমই মাধ্যমিকের গন্ডি পেরোনর দুই বছরের মাথাতেই জীবনে এসে হাজির হয় আরেক পরীক্ষা। মাধ্যমিকের থেকে দুই বছর এগিয়ে তাই এই বড় ভাই এর নাম হলো উচ্চ-মাধ্যমিক।

বাঙালীদের জীবনে মাধ্যমিক হল একটি নস্টালজিয়া, সেই স্কুলে এক্কেবারে শুরুতে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই শুরু হয় এই নস্টালজিয়া এবং মাধ্যমিক শেষ হয়ে যাওয়ার পরও থেকে যায় এই নস্টালজিয়া। তার সাথে সাথে ১০ম শ্রেণীর পরীক্ষা শেষ হলেই তার সাথে জুড়ে যায় এই উচ্চমাধ্যমিক।

তাই আমাদের কাছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাও খুবই স্পেশাল। আর এই স্পেশাল মুহূর্তকে এঞ্জয় করতে আমরা এটাকে একটা উৎসবেই পরিণত করবো আরও কয়েক বছর পর, রেজাল্ট বেরতে না বেরতেই শত শত নিউজ রিপোর্টার মাইক হাতে পৌঁছে যান ১৭-১৮ বছর বয়েসি সেই র‍্যাঙ্ক করা ছেলেপুলেদের কাছে।

আজ বেরিয়ে গেছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট। সবার মনে কাল থেকে যে উত্তেজনা ডানা বেঁধেছিল তা এখন এই মুহূর্তে এক চরম আকার ধারন করে ফেলেছে। বহু ছাত্র ছাত্রী তাদের মনকাঙ্খিত এই পরীক্ষার মাধ্যমে নিজেদের আসন্ন জীবনের একটা পথে বেছে নিতে পারবেন। এই রেজাল্টের ওপর ভিত্তি করে যে যেই বিষয়ে নিজেকে পারদর্শী করতে চায় সে সেই বিষয়ে নিজের জীবন লিখবে।

বীরভূমের শোভন মন্ডল ও রাজর্ষি বর্মন উচ্চমাধ্যমিকে ৪৯৮ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। মেধা তালিকায় ১৩৭ জন পড়ুয়া স্থান পেয়েছে এই প্রথম বার। সংসদের ইতিহাসে প্রথম দেখা যাচ্ছে মেধাতালিকার প্রথম দশে ১৩৭ জন স্থান পেয়েছেন৷

মোট পাশের হার ৮৬.২৯ এই বছরে উচ্চমাধ্যমিকে। পাশের হারে দেখা যাচ্ছে ৮৭.৪৪ ছেলেদের আর মেয়েদের ৮৫.৩০ শতাংশ ৷ কলকাতা, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, কালিম্পং-এ মোট পাশের হার ৯০ শতাংশেরও বেশি। মোট ২ লক্ষ ১৫৫ জন ছাত্রছাত্রী প্রথম বিভাগে পাশ করেছেন।

দ্বিতীয় স্থান অধিগ্রহন করেছেন সংযুক্তা বসু, ঋতম নাথ, তরুণ মাইকাপ ও অনাতপ মিত্র। যাদের প্রাপ্ত নম্বর ৪৯৬। সংযুক্তা বসু বিধাননগর গভর্মেন্ট হাইস্কুলের ছাত্রী। তৃতীয় হয়েছে বর্ণালী ঘোষ, সু্প্রিয় শীল ও সুপ্রিয় ঘোষ, এরা প্রত্যেকেই ৯৮.৮ শতাংশ নম্বর পেয়েছে। রাকেশ কলাবিভাগে প্রথম ও মেধাতালিকায় চতুর্থ হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here