বাসের ভিতর যুবকের মোজার গন্ধে বেহুশ হলেন ৯ যাত্রী…

0
6271
96779665

গরমকাল বলুন বা গ্রীষ্মকাল ব্যাপারটা একই। শীত কালের থেকে গরম যেন একটু বেশি প্রখর, ইংরাজিতে যাকে বলে রাফ। সূর্যের তেজে শুধু মানুষ নয়, সমস্ত প্রানিকুল একটু ছায়ার আশ্রয় খোঁজে। গরম তার তীব্র আকার নিলে নাজেহাল অবস্থায় পড়তে হয় সবাইকে, বিশেষ করে সাধারন মানুষদের। সুতরাং বাঁচবার কোন পথ খোলা থাকে না।

গরম কালে আমাদের প্রত্যেক মানুষেরই কিছু সাধারন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যদিও সমস্যা কখনও সাধারন হয় না। তবুও সমস্যা মানুষকে অপ্রস্তুতিতে ফেলে, কখনও কখনও বিপদেও ফেলে দেয়।

তাছাড়া এই গরমে যে সমস্যাগুলি প্রায়ই ঘটে থাকে। যেমন হিট স্ট্রোক, ডায়রিয়া, গ্যাস্ট্রিক সমস্যা, হজমে গোলমাল, গরমজনিত ঠান্ডাজ্বর, সামার বয়েল।

আবহাওয়ার তারতম্যের কারণে আমাদের শরীর থেকে ঘাম নিৎসৃত হয় এবং এই ঘামের সঙ্গে নিৎসৃত হয় সোডিয়াম ক্লোরাইড, যা আমাদের শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গরমের দিনে এবং কঠিন পরিশ্রমে শরীর থেকে প্রায় তিন-চার লিটার ঘাম নিৎসৃত হয়, সে সঙ্গে লবণ বেরিয়ে যায়। ফলে শরীর জলহীন হয়ে পড়ে।

সমস্ত মারন রোগ ছাড়াও একটা মূল সমস্যা হল ঘাম আর ঘামের গন্ধ। ঘামের গন্ধেও অনেকের অনেক রকম ভাবে ক্ষতি হয়। সেরমই একটি ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশের মিরপুর শহরাঞ্চলে।

বাসে ট্রামে লোকে সর্বত্র চলাফেরা করে এবং এর ফলে চাপাচাপি ধক্কা ধক্কি লেগেই থাকে। প্রচণ্ড গরমে একজনের ঘামের গন্ধ অন্যজনের নাকে প্রবেশ করে।

96779665

তেমনই একই মোজা পড়ে অনেকে চলাফেরা করে দিনের পর দিন। এরমই এক মোজার দুর্গন্ধে এক দুর্ঘটনা ঘটেছে। শহবাগ থেকে মিরপুর যাবার বাসে উঠেছে এক যুবক, যার পায়ে ছিলো এইরাম এক মোজা। এই মোজার গন্ধে অসুস্থ হয়ে পড়েছে সেই বাসের ৯ জন যাত্রী। দুর্গন্ধ সহ্য করতে না পেরে তারা অজ্ঞ্যান হয়ে যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here