অষ্টম শ্রেণীতে ফেল, মাত্র ২১ বছর বয়সে ২০০০ কোটির কোম্পানির মালিক এই যুবক…

0
14491

আজ আপনাদের এমন এক প্রতিভাবান যুবকের কথা বলবো যে মাত্র ২১ বছর বয়সে একটি বিশাল কোম্পানির মালিক। হয়তো শুনতে অবাক লাগছে কিন্তু এটাই সত্যি। মানুষ চাইলে কি না করতে পারে, সেটাই প্রমান করে দিয়েছে সে। সেই ছেলেটির পুঁথিগত পড়াশোনা হয়তো খুব বেশি নেই। আর কম্পিউটার নিয়েও কোন রকম পড়াশোনা সে করেনি।

সে করে দেখিয়েছে যে তথাকথিত শিক্ষা অর্থাৎ শুধুমাত্র বই পড়ে শিক্ষা গ্রহন করে এগিয়ে যাওয়া ছাড়াও অনেক ভাবে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়া যায়। যার কথা বলছি তার নাম হল ত্রিশনিট আরোরা। সে পাঞ্জাবের চন্ডীগড়ের বাসিন্দা।

ত্রিশনিট এমন একটি সিইও যে কোন পড়াশোনা ছাড়াই এথিক্যাল হ্যাকিং এর ফোর্বসে ৩০জনের তালিকায় নিজের নাম তুলতে সক্ষম হয়েছে। শুধু তাই নয়, সে নিজের একটি কোম্পানিও খুলেছে। তার কোম্পানির নাম হল টিএসি সিকিউরিটি। সেটি হল একটি সাইবার সিকিউরিটি কোম্পানি।

ত্রিশনিট হল একজন এথিক্যাল হ্যাকার। তার ছোট থেকেই পড়াশোনা বিশেষ ভালো লাগতোনা। তাই অষ্টম শ্রেণীতে সে পাস করতে পারেনি। তার পর থেকে সে আর পড়াশোনা করেনি। সেই ছেলেটি এখন নিজের কোম্পানি খুলে কোটি কোটি টাকা আয় করছে।

সে জানিয়েছে এই কাজ তার কাছে শখ ছিল। আর সেই শখ কেই সে ব্যবসার রূপ দিয়েছে। ইচ্ছাশক্তি যখন প্রবল হয় তখন কেউই সেখানে বাধার সৃষ্টি করতে পারেনা। ত্রিশনিটও তাই করেছে। সে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে পড়াশোনা না করে শখে ব্যবসা বানিয়ে এখন এই জায়গায় পৌঁছে গেছে।

বর্তমানে তার বয়স ২৫ বছর। সে একটি মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে। ছোটবেলা থেকেই তার আগ্রহ ছিল কম্পিউটারের দিকে। সারাদিন কম্পিউটার নিয়েই পড়ে থাকতো সে। এখন সে একজন এথিক্যাল হ্যাকার। তার কাজ হল নেটয়ার্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা মূল্যায়ন করা।

এই কাজ শুরু করার সময় তার পরিবার পাশে দাঁড়িয়েছিল। তার বাবা তাকে ব্যবসা শুরু করার জন্য ৭৫ হাজার টাকা দেয়। আর তার সাহাজ্যেই সে ব্যবসা শুরু করে। সে এখন বিভিন্ন বড় কোম্পানিতে সাইবার সম্পর্কিত সার্ভিস দিচ্ছে। তাছাড়াও ত্রিশনিট ‘হ্যাকিং টক উইথ ত্রিশনিট আরোরা’ ‘হ্যাকিং উইথ স্মার্টফোন’ ইত্যাদি বই লিখেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here