টার্টল রিং পরেন ? কয়েকটি রাশির জন্য এই আংটি অশুভ…

0
6769

অনেকেই জোতিস শাস্ত্রে বিশ্বাস করেন। জ্যোতিষ মেনে অনেকেই তাবিজ বা বিভিন্ন আংটি ধারন করে থাকেন। নিজের উন্নতি করতে, পরিবারের উন্নতি করতে অনেকেই এইগুলি মেনে চলেন ও জ্যোতিষী পরামর্শ নিয়ে আংটি ধারন করে থাকেন। এই আংটি ধারনের সাথে রাশিফলের সম্পর্ক থাকে। সব আংটি সবাইকে শুট করে না, রাশি অনুযায়ী আংটি ধারন করতে হয়।

অনেকেই মনে করে থাকেন জীবনে বাধা বিপত্তি কাটিয়ে উঠতে গেলে আংটি ধারন করলেই ফল মিলবে, কিন্তু ব্যাপারটা সেটা নয়। আংটি ধারন করার পূর্বে রাশি মিলিয়ে তা ধারন করা উচিত। দেখে নেওয়া উচিত সেই রাশির জাতক জাতিকাদের সাথে সেই আংটি যাচ্ছে কিনা।

কারন রাশি না মিলিয়ে আংটি পরলে তার ফল উল্টো হতে পারে, ভালো হওয়ার বদলে খারাপ হতে পারে। ভিন্ন রাশির ভিন্ন বিষয় শুভ অশুভ প্রভাব বিস্তার করে। কারন সব বস্তু থেকে একটি শক্তি নির্গত হয় যা সবার পক্ষে উপযুক্ত নয়।

জ্যোতিষ পরামর্শ নিয়ে অনেকেই আংটি ধারন করেন যার মধ্যে বর্তমানে টার্টল রিং বা কচ্ছপ আংটি খুব প্রচলিত। দেখতে অনেকটা কচ্ছপের মত এই আংটি। বাস্তুমতে কচ্ছপকে শুভ বলে মনে করা হয়। তাই খারাপ সময় কাটানোর জন্য অনেকেই এই আংটি ধারন করে থাকেন।

আবার অনেকে এই আংটি ফ্যাশেনেবল রিং হিসাবে পরেন। জ্যোতিষমতে সবার জন্য যেমন সব আংটি প্রযোজ্য নয়, তেমনই টার্টল রিং সবার জন্য ঠিক নয়। তবুও অনেকেই এখন হাতে টার্টল রিং পরেন। এটা এখন ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে সবার টার্টল রিং পরা উচিত না।

জ্যোতিষমতে ৪ টে রাশি রয়েছে যাদের কখনই টার্টল রিং পরা উচিত না। এই রাশির জাতক জাতিকারা এই রিং পড়লে ভালোর থেকে ক্ষতি বেশি হওয়ার সম্ভবনা থাকে। এই চার রাশি হল মেষ, কন্যা বৃশ্চিক ও মীন। এই রাশির জাতক জাতিকাদের কখনই টার্টল রিং ধারন করা উচিত না। যদি পরেও থাকেন তা খুলে ফেলাই ভালো।